National Policy on Education ॥ জাতীয় শিক্ষানীতি

জাতীয় শিক্ষানীতি (National Policy on Education)

1. জাতীয় শিক্ষা নীতি (National Police on Education) বলতে কি বোঝায় ?
উঃ ভারতের জনগণের মধ্যে শিক্ষার প্রচার ও প্রসারের জন্য ভারত সরকার কর্তৃক প্রণীত শিক্ষা নীতিকে জাতীয় শিক্ষা নীতি বলা হয় । সময়ের সাথে সাথে এই নীতি পরিবর্তিত ও প্রসারিত হয়ে থাকে ।

2. ভারতে জাতীয় শিক্ষা নীতি গ্রহণের পূর্বে কোন কোন শিক্ষা কমিশন গঠিত হয় ?
উঃ ভারতে জাতীয় শিক্ষা নীতি গ্রহণের পূর্বে ভারতীয় শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন এবং আধুনিকীকরণের জন্য তিনটি কমিশন গঠিত হয়, যথাঃ 1948–1949 এর University Education Commission, 1952–1953 এর The Secondary Education Commission, 1964–66 এর The Kothari Commission .

3. স্বাধীনতা পূর্ব থেকে পরবর্তী সময়কালে ভারতীয় শিক্ষার উন্নয়নে গঠিত গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষাকমিশন/প্রতিবেদন গুলি কিকি ?
উঃ 1.স্বাধীনতা পূর্ব থেকে পরবর্তী সময়কালে ভারতীয় শিক্ষার উন্নয়নে গঠিত গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষাকমিশন/প্রতিবেদন গুলি হলঃ i) The Indian Education Commission, or Hunter Commission -1882, ii) The Indian Universities Commission -1902, iii) The Calcutta University Commission – 1917-19, iv) The Hartog Committee – 1928-29. v) Abbot-Wood Committee – 1936-37, vi) Zakir Hussain/Wardha Committee on Basic Education – 1938, vii) The Sergeant Report – 1944, The University Education Commission/ Radhakrishnan Commission – 1948-49, viii) B. G. Kher Committee on Primary Education – 1951, ix) The Secondary Education Commission – 1952-53, x) Official Language Commission – 1956, xi) The university Grants Commission/ Kunzuru Committee Report. xii) The Education Commission/ Kothari Commission – 1964-66, xiv) Dr. Trigun Sen/ Higher Education Committee Report – 1967, xv) The Study Group Reports on the Teaching of English – 1967-71, xvi) National Policy on Education – 1986, xvii) Archarya Ramamurti Commission – 1990

4. এখনো পর্যন্ত কয়টি শিক্ষানীতি গৃহীত হয়েছে ?
উঃ এখনো পর্যন্ত চারটি শিক্ষানীতি গৃহীত হয়েছে, তার মধ্যে দুটি শিক্ষানীতি স্বতন্ত্র, একটি পরিমার্জিত এবং একটি খসড়া (Draft) অবস্থায় রয়েছে । প্রসঙ্গত এর মধ্যে আরো একটি শিক্ষা নীতির খসড়া প্রয়োগ হলেও তা গুরুত্ব হারায় ।

5. প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতি কখন গৃহীত হয় ?
উঃ 1968 সালের 24 শে জুলাই তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শ্রীমতী ইন্দিরা গান্ধী এবং শিক্ষামন্ত্রী ত্রিগুনা সেন এর সময়কালে ভারতের প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতি গৃহীত হয় ।

6. কোন কমিশনের রিপোর্টের ভিত্তিতে তৎকালীন ভারত সরকার প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতি প্রবর্তন করেন ?
উঃ The Kothari Commission (1964–66) এর রিপোর্ট এবং সুপারিশের ভিত্তিতে তৎকালীন ভারত সরকার প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতি প্রবর্তন করেন ।

7. প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতির জন্য কখন খসড়া কমিটি গঠিত হয় ?
উঃ প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতির জন্য ভারত সরকার 1967 সালের 5 ই এপ্রিল ‘The Committee of Members of Parliament on Education’ নামক 30 সদস্যের খসড়া কমিটি গঠিত হয় ।

8. প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতি অন্য কি নামে পরিচিত ?
উঃ প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতি “National School System” নামেও পরিচিত ।

9. প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতিতে কয়টি নীতি গৃহীত হয় ?
উঃ প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতিতে 17 টি নীতি গৃহীত হয়, এগুলো হলঃ i) Provision of Free & Compulsory Education, ii) Raising Status, Emolumentsand Education of Teachers, iii) Development of Language, iv) Equalisation of Educational Opportunity, v) Identification of Talents, vi) Work-experience andNational Service, vii) Science Education and Research, viii) Education for Agriculture and Industry, ix)Production of Books, x) Examination Reform, xi) Facilities for Secondary Education, xii) Strengthening of University Education, xiii) Provision of Part-time Education andCorrespondence Courses, xiv) Spread of Literacy & Adult Education, xv) Importance of Sports & Games, (xvi) Special Effort for Education of Minorities এবং xvii) Creation of a Broad Uniform Education Structure ইত্যাদি ।

10. প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতিতে অনুসৃত গুরুত্বপূর্ণ নীতিগুলি কিকি ?
উঃ প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতিতে অনুসৃত গুরুত্বপূর্ণ নীতিগুলি হলঃ i) বিনামূল্যে বাধ্যতামূলক শিক্ষার ব্যবস্থা (Free and Compulsory Education), ii) শিক্ষকদের মর্যাদা, সক্ষমতা ও শিক্ষা সুনিশ্চিত করা (Status, Emulations and Education of Teachers), iii) ভাষার বিকাশ (Language Development), iv) সবার জন্য শিক্ষার সুযোগ তৈরি (Education Opportunity for all), v) সময় সময় অগ্রগতি পর্যালোচনা (To review the progress), vi) সংস্কৃত ভাষার উন্নতি সাধন করা (Development of Sanskrit language), vii) ভারতের সম্মিলিত সংস্কৃতিতে প্রচারের মাধ্যম হিসাবে হিন্দি ভাষার গুরুত্ববৃদ্ধি (Promotion of Hindi as a medium of expression in the composite culture of India), viii) সারাদেশে শিক্ষার সাধারণ গ্রহণযোগ্য কাঠামোর বিকাশ (The acceptance of common structure of education throughout the country), ix) আন্তর্জাতিক ভাষা, বিশেষত ইংরেজী অধ্যয়নের উপর গুরুত্বআরোপ করা (Emphasis on the study of international language, especially English) ইত্যাদি ।

11. প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতির লক্ষ্যগুলি কিকি ছিল ?
উঃ প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতির গুরুত্বপূর্ণ লক্ষ্যগুলি ছিল – i) সকলের জন্য শিক্ষার ব্যবস্থা করা, ii) শিক্ষাব্যবস্থাকে বিজ্ঞানসম্মত করা এবং প্রযুক্তির উন্নয়ন ঘটানো, iii) সামাজিক এবং সাংস্কৃতিক উন্নয়নের প্রগতি মসৃণ করা, iv) মানব সম্পদ উন্নয়নে গুরুত্বারোপ করা ইত্যাদি ।

12. ভারতীয় সংবিধানের কত নম্বর ধারা অনুযায়ী প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতিতে হিন্দি ভাষাকে যোগসূত্রকারী ভাষা (Link Language) হিসাবে উপস্থাপন করা হয় ?
উঃ ভারতীয় সংবিধানের 351 নম্বর ধারা অনুযায়ী প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতিতে হিন্দি ভাষাকে যোগসূত্রকারী ভাষা (Link Language) হিসাবে উপস্থাপন করা হয় ।

13. ভারতীয় সংবিধানের কত নম্বর ধারা অনুযায়ী প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতিতে ‘বিনামূল্যে বাধ্যতামূলক শিক্ষা’র নীতি গৃহীত হয় ?
উঃ ভারতীয় সংবিধানের 45 নম্বর ধারা অনুযায়ী প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতিতে ‘বিনামূল্যে বাধ্যতামূলক শিক্ষা’র নীতি গৃহীত হয় । এই নীতি সম্পূর্ণকরণের উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহনের সুপারিশও করা হয় এবং বিদ্যালয় অপচয় রোধ যাতে নিয়ন্ত্রণে আসে তার প্রতি গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলা হয় প্রথম শিক্ষানীতিতে ।

14. প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতিতে শিক্ষাব্যবস্থার গাঠনিক স্তর গুলি কিভাবে বিন্যস্ত করা হয় ?
উঃ প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতিতে শিক্ষাব্যবস্থার গাঠনিক স্তর হিসাবে 10+2+3 এই তিনটি স্তরে বিন্যস্ত করা হয় ।

15. প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতিতে গৃহীত নীতি গুলি কত বছর অন্তর কার্যকারিতা ও বাস্তবায়নের মূল্যায়ন করার কথা উল্লেখ করা হয় ?
উঃ প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতিতে গৃহীত নীতি গুলি 5 বছর অন্তর কার্যকারিতা ও বাস্তবায়নের মূল্যায়ন করার কথা উল্লেখ করা হয় ।

16. প্রথম জাতীয় শিক্ষা নীতি সম্পূর্ণ সফল না হবার গুরুত্বপূর্ণ কারণগুলি কিকি ?
উঃ 1968 সালের প্রথম জাতীয় শিক্ষানীতি বা NEP-I খুব একটা সফল হয়নি । এর বেশ কয়েকটি করণের মধ্যে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ হলঃ i) প্রথমত, সেই সময়ে আদর্শ কার্য পরিকল্পনা গ্রহণ করা সম্ভব হয়নি । ii) দ্বিতীয়ত, ভারতের অর্থনীতি দুর্বল থাকায় যথেষ্ট তহবিলের ঘাটতি ছিল । এবং iii) তৃতীয়ত, সেই সময় শিক্ষাগত দিকটি রাজ্যের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত থাকায় রাজ্যগুলি কীভাবে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে সে সম্পর্কে কেন্দ্রের ভূমিকা খুব কম ছিল ।

17. UEE এর সম্পূর্ণ অর্থ কি ?
উঃ UEE এর সম্পূর্ণ অর্থ হল – Universalization of Elementary Education. Sargent Committee (1944) এবং Kher Committee (1949) এর সুপারিশ কে মান্যতা দিয়ে 1950 সালে ভারতীয় সংবিধান প্রবর্তনের সময় শিক্ষা ব্যবস্থার দুরবস্থা ও নিরক্ষরতা দূরীকরণের লক্ষ্যে এই ধারণা অন্তর্গত করা হয় । পরবর্তী কালে বিভিন্ন পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার মাধ্যমে UEE কে সফল করার চেষ্টা চলে ।

18. UEE এর ভিত্তিগুলি কিকি ?
উঃ Universalization of Elementary Education এর তিনটি গুরুত্বপূর্ণ ভিত্তি হলঃ i) বিধানের সার্বজনীনতা (Universalization of Provision), ii) তালিকাভুক্তির সার্বজনীনতা (Universalization of Enrolment) এবং iii) রক্ষণাবেক্ষণের সার্বজনীনতা (Universalization of Retention) ইত্যাদি ।

19. স্বাধীন ভারতের দ্বিতীয় শিক্ষা নীতি খসড়া কখন প্রবর্তিত হয় ?
উঃ 1979 সালে তৎকালীন জনতা সরকারের সময় স্বাধীন ভারতের দ্বিতীয় শিক্ষা নীতি খসড়া প্রবর্তিত হয় । এই শিক্ষা নীতির কিছু বিষয় শিক্ষা ব্যবস্থায় প্রয়োগ করা হলেও পার্লামেন্ট এ গৃহীত হওয়ার পূর্বে 1980 সালে জনতা সরকারের পতনের পর পরবর্তী কংগ্রেস সরকার 1968 সালের শিক্ষানীতি পুনঃ বহাল করে ফলে এই শিক্ষা নীতি গুরুত্ব হারায় ।

20. “Education for our People” নামক শ্বেতপত্র কে প্রস্তুত করেন ?
উঃ Draft National Policy of Education – 1979 এর ভিত্তিতে Prof. Jayant Pandurang Naik “Education for our People” নামক শ্বেতপত্রটি প্রস্তুত করেন ।

21. 1979 সালের শিক্ষানীতির গুরুত্বপূর্ণ দিকগুলো কিকি ?
উঃ 1979 সালের শিক্ষানীতির গুরুত্বপূর্ণ দিকগুলো হলঃ i) Neighbourhood School Plan, ii) Diversification and Reduction of Academic Load, iii) Community Participation, iv) Agriculture & Medical Education, V) Control of fee structure of Public Schools ইত্যাদি ।

22. 1979 সালের শিক্ষানীতিতে কোন কোন বিষয়কে সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া হয় ?
উঃ 1979 সালের শিক্ষানীতিতে সংবিধানের নির্দেশিকা নীতি অনুযায়ী – i) 14 বছরের কম বয়সী সকলের জন্য বিনামূল্যে শিক্ষার সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়া, ii) এই পর্যায়ের শিক্ষাব্যবস্থাকে বিশেষ (Specialized) এর পরিবর্তে সাধারনীকরণ (General) করা এবং iii) শিক্ষার্থীদের আত্মবিশ্বাসী করে তোলার জন্য ভাষার বিকাশ ও বৈজ্ঞানিক মনোভাব বিকাশ অন্তর্ভুক্ত করা এই তিনটি বিষয়কে সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া হয় ।

23. দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষা নীতি কখন গৃহীত হয় ?
উঃ 1986 সালের মে মাসে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধী এবং শিক্ষামন্ত্রী ললিতেশ্বর প্রসাদ সাহি (Laliteshwar Prasad Shahi) এর সময়কালে ভারতের দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষা নীতি গৃহীত হয় ।

24. কোন সময় দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষা নীতির খসড়া প্রস্তুত করা হয় ?
উঃ দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষা নীতি প্রবর্তনের জন্য 1985 সালে ‘Challenges of Education’ নামক নামক খসড়া প্রস্তুত করা হয় এবং জনগণের মতামত গ্রহণের জন্য ভারতের বিভিন্ন অংশে অনুষ্ঠিত Conferences ও Seminars এ বিষয়টি বারবার আলোচনা করা হয় । 1985 সালের আগস্টে খসড়াটি “Challenge of Education—A Policy Perspective” নামে লোকসভায় উত্থাপিত হয় ।

25. দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতি কয়টি অংশে বিভক্ত ?
উঃ দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতি 12 টি অংশে বিভক্ত, যথাঃ i) Part I – Introductory, ii) Part II – The Essence and Role of Education, iii) Part III – National System of Education, iv) Part IV – Education for Equality, v) Part V – Reorganization of Education at different stages, vi) Part VI – Technical and Management Education, vii) Part VII – Making the System work, viii) Part VIII – Re-orienting the Content and Process of Education, ix) Part IX – The Teacher, x) Part X – The Management of Education, xi) Part XI – Resources and Review এবং xii) Part XII – The Future ইত্যাদি ।

26. দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতির প্রথম অংশের (অধ্যায়ের) মূল বক্তব্য কি ?
উঃ দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতির প্রথম অংশে শিক্ষানীতিটি সম্পর্কে সুস্পষ্ট ধারণা প্রদান করা হয় এবং 1986 সালের শিক্ষানীতি ও তার পরবর্তী পরিস্থিতির বিশ্লেষণ করা হয় ।

27. দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতির দ্বিতীয় অংশের (অধ্যায়ের) মূল বক্তব্য কি ?
উঃ দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতির দ্বিতীয় অংশের (অধ্যায়ের) মূল বক্তব্য হলঃ শিক্ষার লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য সম্পর্কে বিস্তারিত বর্ণনা প্রদান । এই অংশে জাতির অগ্রগতিতে শিক্ষার ভূমিকা বিশদে আলোচনা করা হয় এবং শিক্ষায় বিনিয়োগের উপর গুরুত্ব আরোপের কথা উল্লেখ করা হয় । এই অংশের মাধ্যমে “Education is a unique investment in the present and the future” ধারণাটিকে বাস্তবায়িত করার পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করা হয় ।

28. দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতির তৃতীয় অংশের (অধ্যায়ের) মূল বক্তব্য কি ?
উঃ দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতির প্রথম অংশের (অধ্যায়ের) মূল বক্তব্য হলঃ শিক্ষার জাতীয় কাঠামো উপস্থাপন করা । এই উদ্দেশ্যে এই অংশে 9 টি দিকের উল্লেখ করা হয়, যথাঃ i) শিক্ষাব্যবস্থার 10+2+3 কাঠামো, ii) অন্যান্য বিষয়ের সাথে সংযুক্ত সাধারণ কেন্দ্র বিশিষ্ট জাতীয় পাঠ্যক্রম কাঠামো নির্মান, iii) বৈশ্বিক দৃষ্টিভঙ্গিতে শিক্ষার গুরুত্বকে উন্মোচিত করে শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করা, iv) সবার জন্য সমান সুযোগ সৃষ্টি করা, v) শিক্ষার প্রতিটি পর্যায়ে শিক্ষার সর্বনিম্ন স্তর নির্দিষ্ট করা, vi) সাধারণভাবে উচ্চ শিক্ষাতে এবং বিশেষভাবে প্রযুক্তিগত শিক্ষাক্ষেত্রে আন্তঃ আঞ্চলিক গতিশীলতা সহজতর করা, vii) জীবন ব্যাপী শিক্ষার ব্যবস্থা করা, viii) UGC, AICTE, ICAR, IMC, NCERT, NTEPA ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা নিয়ন্ত্রক সংস্থার ভূমিকা নির্দিষ্ট করা এবং ix) 1976 সালের সাংবিধানিক সংশোধনী অনুযায়ী শিক্ষা সংস্থার সাথে জড়িত থাকার জন্য শিক্ষার জাতীয় ও সমন্বিত চরিত্রকে পুনর্বিন্যস্ত করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার ভূমিকা নির্দিষ্ট করা ইত্যাদি ।

29. দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতির চতুর্থ অংশের (অধ্যায়ের) মূল বক্তব্য কি ?
উঃ দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতির চতুর্থ অংশের (অধ্যায়ের) মূল বক্তব্য হলঃ বৈষম্য দূরীকরণের মাধ্যমে সর্বস্তরে শিক্ষার প্রসার ঘটানো । এর জন্য চতুর্থ অংশে 10 টি গুরুত্বপূর্ণ ব্যবস্থার কথা উল্লেখ করা হয়, যথাঃ i) শিক্ষায় বৈষম্য অপসারণ এর ব্যবস্থা করা, ii) নারীদের অগ্রগতিতে বিভিন্ন উপযোগী কর্মসূচী গ্রহণ করা, iii) নারী নিরক্ষরতা অপসারনে সচেষ্ট ভূমিকা গ্রহণ, iv) সাধারণ জাতিগোষ্ঠীর শিক্ষার সাথে তপশিলি জাতির শিক্ষার সমানতা বিধান করতে হবে, v) তপশিলি জাতির শিক্ষার উন্নয়নে মাধ্যমিক পূর্ববর্তী বৃত্তি প্রদান, নিয়মিত ক্ষুদ্র পরিকল্পনা গ্রহণ ও তার মূল্যায়ন, তপশিলি জাতি থেকে শিক্ষক নিয়োগ ইত্যাদি সুনিশ্চিত করা, vi) উপজাতির শিক্ষা সুনিশ্চিত করা, vii) শিক্ষাগতভাবে পিছিয়ে পড়া অন্যান্য সমাজবর্গ ও ক্ষেত্রের শিক্ষা সুনিশ্চিত করা, viii) সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের শিক্ষা সুনিশ্চিত করা, ix) প্রতিবন্ধীদের শিক্ষা সুনিশ্চিত করা, x) বয়স্ক শিক্ষার প্রসার ঘটানো ইত্যাদি ।

30. দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতির পঞ্চম অংশের (অধ্যায়ের) মূল বক্তব্য কি ?
উঃ দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতির পঞ্চম অংশের (অধ্যায়ের) মূল বক্তব্য হলঃ শিক্ষা ব্যবস্থার বিভিন্ন স্তরে শিক্ষার সামঞ্জস্য বজায় রেখে শিক্ষার পুনর্গঠন করা । এই উদ্দেশ্যে দ্বিতীয় জাতীয় শিক্ষানীতির পঞ্চম অংশে 15 টি বিষয় অন্তর্ভুক্ত করা হয়, যথাঃ i) প্রাক-শৈশব শিশুকল্যাণ ও শিক্ষা (Early childhood care and Education) সুনিশ্চিত করা, ii) প্রাথমিক পর্যায়ে 14 বছর বয়স পর্যন্ত শিশুদের সর্বজনীন নথিভূক্তিকরণ ও সর্বজনীনভাবে তাদের ধরে রাখার ব্যবস্থা করা, iii) শিশু – কেন্দ্রীক পদ্ধতি অনুসরণ করা, iv) প্রাথমিক শিক্ষা সুনিশ্চিত করার জন্য প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান করা, v) Non Formal Education (NFE) এর জন্য নিয়মিত পরিকল্পনা প্রণয়ন করা, vi) Non Formal Education (NFE) কেন্দ্রে শিখন পরিবেশ উন্নত করার জন্য আধুনিক প্রযুক্তিগত সাহায্য ব্যবহার সুনিশ্চিত করা, vii) পাঠ্যক্রমের জন্য ফ্রেমওয়ার্ক তৈরি করা, viii) NFE কেন্দ্রের জন্য তহবিল সুনিশ্চিত করা, ix) বিদ্যালয় ছুট (Drop outs) সমস্যা সমাধানের জন্য সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার প্রদান করা, x) মাধ্যমিক শিক্ষার গুরুত্ব এবং বিস্তার সুনিশ্চিত করা, xi) গ্রামাঞ্চলের মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য অগ্রগামী বিদ্যালয় ব্যবস্থা সুনিশ্চিত করা, xii) শিক্ষা ব্যবস্থাকে বৃত্তিমূখীকরণ করা, xiii) জাতীয় উন্নয়নের স্বার্থে উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্র প্রসারিত করা, xiv) উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রকে গতিশীল করার ব্যবস্থা করা, xv) শিক্ষা ব্যবস্থাকে অবক্ষয় থেকে রক্ষার জন্য জরুরি পদক্ষেপ গ্রহণ করা ইত্যাদি ।

 

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!