ভারতের ভূপ্রকৃতি ll PHYSICAL ASPECTS OF INDIA Part-1

PHYSICAL ASPECTS OF INDIA 



 

ভারত,পৃথিবীর সপ্তম বৃহত্তম দেশ l আয়তন 33,87,363 বঃকিঃমিঃ প্রায় l ইহা পৃথিবীর মোট স্থলভাগের 2.42% জুড়ে অবস্থিত l এর ভৌগলিক অবস্থান 8 ডিগ্রি 4‘ উত্তর থেকে 37 ডিগ্রি 6‘ উত্তর অক্ষাংশ এবং 68o 7 ‘পূর্ব থেকে 97 ডিগ্রি 25’ পূর্ব দ্রাঘিমাংশের মধ্যে l এর উত্তর থেকে দক্ষিণে বিস্তার 3214 কিঃমিঃ এবং পূর্ব-পশ্চিমে 2933 কিঃমিঃ l এর প্রমাণ সময়কাল G M T (গ্রিনিচ মেন টাইম)+ 05ঘন্টা 30মিনিট l ভারতের পূর্ব নাম জম্বু দ্বীপ এছাড়া অন্যান্য নামগুলো হল – আর্যাবর্ত,পূর্ণ ভূমি,ভারতবর্ষ,হিন্দুস্তান,বৃহত্তর ভারত এবং ইন্ডিয়া l

জনশ্রুতি হিসাবে বলাযায় বৈদিক যূগে দুষ্মন্ত পুত্র ভরতের নামানুসারে এই পূণ্যভূমির নামকরণ হয় ভারতবর্ষ l প্রথমার্ধে পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তান সহ বিশাল দেশ রূপে পরিচিত ছিল যা ভারতবর্ষ নামে অভিহিত l 1947 সালের 14ই আগস্ট পকিস্তান ও পূর্ব পকিস্তান (বর্তমান বাংলা দেশ) মূল ভূখণ্ড থেকে বিভক্ত হয়ে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র গঠন করে এবং অবশিষ্ট মূল ভূখণ্ড 1947 সালের 15 ই আগস্ট শুক্রবার ভারত (INDIA=Independent Nations Declared In August) নাম নিয়ে এক স্বাধীন রাষ্ট্র রূপে বিশ্ব মানচিত্রে স্থানাধিকার করে l
INDIA শব্দটির উত্পত্তি গ্রীক শব্দ ‘Indoi’ থেকে যার অর্থ ‘নদী দ্বারা বেষ্টিত ভূভাগ’l আবার সিন্ধু বা ইন্দাস নদীর দ্বারা প্রভাবিত বলে এঁকে ‘India’বা ‘Hindustan’নামেও অভিহিত করা হয় l

পড়ুন 👉 জনসংখ্যা ভূগোলের সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর

আসমূদ্র হিমাচল ভারত পূর্বে বাঙলাদেশ ও মায়ানমার ; পশ্চিমে পকিস্তান ; উঃ পশ্চিমে আফগানিস্তান ; উত্তরে চীন ,নেপাল ,ভুটান এবং দক্ষিণে শ্রীলঙ্কা রাষ্ট্র দ্বারা বেষ্টিত ভারতের সর্ব দক্ষিণ বিন্দু ইন্দিরা পয়েন্ট (নিকোবর দ্বীপ ,2004,26 সা ডিসেম্বরের সুনামী দ্বারা বর্তমানে অবলুপ্ত)এবং সর্ব দক্ষিণ স্থান কন্যাকুমারীকা l ভারতের ভূমিভাগের 43% সমভূমি ,27.7% মালভূমি ,18.6% পাহাড় এবং 10.7% পর্বত দ্বারা গঠিত l ভারতের বিস্তীর্ণ উপকূল ভূমির দৈর্ঘ 7,516.7 কিঃমিঃ যা লক্ষদ্বীপ ,আন্দামান-নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ সন্মিলিত l ভারতের ওপর দিয়ে দ্রাঘিমা ও কর্কট ক্রান্তি রেখা বিস্তৃত l ভারতের প্রমাণ দ্রাঘিমা রেখা (82 ডিগ্রি 30’পূঃ)উত্তর প্রদেশ ,মধ্যপ্রদেশ ,ছত্তিশগড় ,ওড়িশা ও অন্ধ্র এই পাঁচটি রাজ্য কর্কট ক্রান্তি রেখা যথাক্রমে গুজরাট ,রাজস্থান ,মধ্যপ্রদেশ , ছত্তিশগড় ,ঝাড়খন্ড ,পশ্চিমবঙ্গ ,ত্রিপুরা ও মিজোরাম এই আটটি রাজ্যের ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে l

এখান থেকে পড়ুন 👉 পুঞ্জিত ক্ষয় সম্পর্কে

Relief Of India :-

Classification into Natural Region of India :- বৈচিত্র পূর্ণ ভারত (1947,15th August) ভূমিকে ভূপ্রাকৃতিক দৃষ্টিকোণ থেকে প্রধান পাঁচ ভাগে ভাগ করা যায় ,যথা :-

1.The Northern Himalayan Mountain Region :-


A. Location :- উত্তরের হিমালয় পার্বত্যাঞ্চল ভারতের উত্তর সীমান্তে পশ্চিমে কাশ্মীর (71 ডিগ্রি E) থেকে পূর্বে আসাম (97 ডিগ্রি E)পর্যন্ত অর্ধচন্দ্রাকারে বিস্তৃত l এর পূর্ব-পশ্চিমে বিস্তার প্রায় 2500কিঃমিঃ এবং উত্তর-দক্ষিণের দৈর্ঘ 240-320কিঃমিঃ l অঞ্চলটি 5,00,000 বঃ কিঃমিঃ অংশ জুড়ে অবস্থিত l পর্বতমালা টির 2/3 ভাগ ভারতের মধ্যে এবং বাকি অংশ নেপালে অবস্থিত l

পড়ুন 👉 পর্যায়ণ সম্পর্কে

B. Regional Classification :- উত্তরের হিমালয় পার্বত্যাঞ্চলকে বিভিণ্ন দৃষ্টিকোণ থেকে যেসমস্ত ভাগে ভাগ করা যায় সেগুলো হল –

A. Basis of Hight and Relief :- উচ্চতা ও ভূপ্রকৃতি অনুসারে দক্ষিণ থেকে উত্তরে হিমালয় কে চারটি সমান্তরাল পর্বত শ্রেণীতে ভাগ করা যায় ,যথা :-
B/A/1. Outer Himalaya or Siwalik :- হিমালয়ের সর্ব দক্ষিণে কম উচ্চতা যুক্ত ছোট ছোট পাহাড় শ্রেণী শিবালিক নামে অভিহিত l এর গড় উচ্চতা 300-1200মিঃ ; প্রস্থ প্রায় 10-15কিঃমিঃ l অঞ্চলটির ঢাল দক্ষিণদিকে খুব খাড়া এবং উত্তরে ঢালু l অঞ্চলটির উত্তর ঢাল ক্রমশঃ ঢালু হয়ে উপত্যকায় মিশেছে l
B/A/2. Middle Himalaya or Himachal :- শিবালিকের উত্তরে অবস্থিত গড়ে 2000-3000মিঃ উচ্চতা বিশিষ্ট -পিরপাঞ্জল ,নাগটিব্বা এবং দুন সমন্বিত পর্বতমালা যুক্ত অংশ অবহিমালয় বা মধ্য হিমালয় বা হিমাচল নামে অভিহিত l

পড়ুন 👉 বৃষ্টির জল সংরক্ষণ সম্পর্কে

B/A/3. Great Himalaya or Himadri or Himgiri :- হিমাচলের উত্তরে মাউন্ট এভারেস্ট (8848মিঃ ,বর্তমানে 8852মিঃ)সম্বলিত সূ-উচ্চ পর্বত শ্রেণী হিমাদ্রি বা উচ্চ হিমালয় বা হিমগিরি নামে পরিচিত ,যার গড় উচ্চতা 6000মিঃ , হিমগিরি চির তুষারাবৃত l

B/A/4. Tethys Himalaya or Trans Himalaya :- হিমাদ্রির উত্তরে তিব্বত দেশের জাস্কর পর্বত শ্রেণী এবং লিউপারগোল পর্বতশৃঙ্গ যুক্ত সূউচ্চ পর্বতমালা টেথিস হিমালয় বা ট্রান্স হিমালয় নামে অভিহিত l এর গড় উচ্চতা 5,000মিঃ l
পড়ুন 👉 বিভিন্ন প্রকার অর্থনৈতিক কার্যাবলী সম্পর্কে

B. Basis of Regional Characteristic :- আঞ্চলিক বৈশিষ্ট অনুসারে হিমালয় কে পশ্চিম থেকে পূর্বে প্রধান তিনভাগে ভাগ করা যায় ,যথা :-

B/B/1. Western Himalaya :- এই অঞ্চল জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যের পশ্চিম সীমা থেকে নেপালের পশ্চিম সীমা পর্যন্ত বিস্তৃত ,অঞ্চলটির গড় উচ্চতা 2000মিঃ l পশ্চিম হিমালয় কে তিনটি উপ অঞ্চলে ভাগ করা যায় ,যথা :-

Kasmir Himalaya :- জম্মু – কাশ্মীর রাজ্য জুড়ে এই অংশটি অবস্থিত l অঞ্চলটির গড় উচ্চতা 1300 মিঃ l হিমালয়ের এই অংশে নাঙ্গা পর্বত ,কোলাহোই ,নুনকুন ,নাগিন শেরু ,পিপরান ,তাতাকুটি প্রভৃতি শৃঙ্গ ; বুর্জিলা ,জোজিলা ,বানিহাল ,শিপকি লা ,রোটাং প্রভৃতি গিরিপথ অবস্থিত l

Himachal Himalaya :- হিমাচল প্রদেশ রাজ্য জুড়ে হিমাচল হিমালয় এর অবস্থান l হিমালয়ের এই অংশে ধৌলাধর ,পিরপাঞ্জল ,নাগটিব্বা প্রভৃতি পর্বত ; কুলু ,কাংড়া ,চাম্বা ,লাহুল প্রভৃতি উপত্যকা এবং কুলু ও লাহুল উপত্যকা সংযোগ কারী রোটাং গিরিপথ অবস্থিত l



আপনি আগামি SLST Geography পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছেন ? তাহলে আপনি নিঃসন্দেহে যুক্ত হয়ে যেতে পারেন MGI SLST Geography Online Coaching ব্যবস্থার সাথে I

নিয়মিত ভাবে বাড়িতে বসে উচ্চ মানের স্টাডি ম্যাটেরিয়াল সহ মক টেস্ট এবার আপনার হাতের মুঠোয় I বর্তমানে MGI SLST Geography Online Coaching 200 + সদস্য, আপনিও এই সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে পারেন I

বিশদে জানতে ও মেম্বারশীপ নিতে ক্লিক করুন নিচের লিঙ্কে 👇👇

MGI SLST Geography Online Coaching, JOIN NOW

 



Kumayun / Uttarakhand Himalaya :- হিমালয়ের এই অংশ উত্তরা খণ্ডের মধ্য দিয়ে নেপালের পশ্চিম পর্যন্ত বিস্তৃত l অঞ্চলটির উচ্চতা 750-1200 মিঃ l নন্দাদেবী (7,817মিঃ)এই অংশের সর্বোচ্চ শৃঙ্গ l অন্যান্য পর্বতের মধ্যে বন্দর পুঞ্জ ,বদ্রীনাথ , কামেত ,তুঙ্গনাথ প্রধান l

B/B/2. Central Himalaya :- 6,000 মিঃ গড় উচ্চতা যুক্ত এবং এভারেস্ট ,কাঞ্চনজঙ্ঘা (8,598মিঃ),মাকালু (8,481মিঃ),ধবল গিরি (8,172মিঃ),অন্নপূর্ণা (8,078মিঃ)প্রভৃতি সূউচ্চ পর্বত সম্বলিত এই অংশটি পশ্চিমে কালী নদী থেকে পূর্বে সিঙ্গালীলা পর্বত শ্রেণী পর্যন্ত নেপাল রাষ্ট্রের মধ্যে বিস্তৃত l

B/B/3. Eastern Himalaya :- নেপালের পূর্বাংশ থেকে মায়ানমারের পশ্চিম সীমা পর্যন্ত বিস্তৃত অংশ পূর্ব হিমালয় নামে অভিহিত l পূর্ব হিমালয়কে তিনটি অংশে ভাগ করা যায় ,যথা –

Sikkim – Darjilling Himalaya :- পূর্ব হিমালয়ের যে অংশ সিকিম রাজ্য ও পশ্চিমবঙ্গের দার্জিলিং জেলায় অবস্থিত তাকে সিকিম- দার্জিলিং হিমালয় বলে l এই অংশের প্রধান পর্বতে শ্রেণীর মধ্যে কাঞ্চনজঙ্ঘা , সিঙ্গালীলা ,ডাউ হিল ,ডংকিয়া ,সান্দাকফু ফালুট প্রভৃতি উল্লেখ্য l

Bhutan Himalaya :- পূর্ব হিমালয়ের যে অংশ ভুটানের অন্তর্গত তাকে ভুটান হিমালয় বলে l ওয়াংচু ,মোচু ,মানস প্রভৃতি নদীগুলো এই অংশে প্রবাহিত l

Assam – Arunachal Himalaya :- পূর্ব হিমালয়ের যে অংশ অরুণাচল প্রদেশের মধ্যে বিস্তৃত তাকে অসম-অরুণাচল হিমালয় বলে l অসম হিমালয় বিভিণ্ন পার্বত্য নদী দ্বারা বিছিন্ন l এখানকার উল্লেখযোগ্য নদী গুলি হল ডিহং ,ডিবং ,কামলা ইত্যাদি l



MGI এর প্রচেষ্টায় ভূগোল বিষয়ে এই প্রথম 2500 + সালের সংকলন যুক্ত ইবুক “ভৌগোলিক সালানুক্রম” আপনি সংগ্রহ করে রাখতেই পারেন I

সংগ্রহ করুন নিচের লিঙ্ক থেকে 👇👇

“ভৌগোলিক সালানুক্রম” ইবুক



 

Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!